Thursday, August 30, 2018

Forough Forrokhzad

The Bird May Die... - Poem by Forough Farrokhzad
I feel sad,
I feel blue.
I go outside and rub my cold fingers-
on the sleek shell of the silent night.
I see that all lights of contact are dark,
All lanes to relate us- are blocked.
Nobody will introduce me to the sun,
Nobody will take me- to the gathering of doves.
Keep the flight in mind,
The bird may die.
Translation: Maryam Dilmaghani, September 2006, Montreal
Forough Farrokhzad

Wednesday, August 29, 2018

Monay koro

মনে করো 
মনে করো তুমি হাসতেহাসতে পিছন দিকে হাটতে হাটতে 
তোমার সোনালী রুমাল উড়িয়ে বলছিলে সরে যাওয়া অতীত কে  "বিদায়"
তোমার পরনে ছিল সেই প্রজাপতি রঙের শাড়ীটা 
উদ্ধত ছিল দেহবল্লরী ,
মনে করো আমিও তখন গলির মুখে ল্যাম্প পোস্টের পাশ দিয়ে 
উধাও হয়ে চলে ছিলাম, একটা বর্তমান নিয়ে জানিনা কেন !
আমার পরনে ছিল সে হলুদ রঙের পাঞ্জাবি ,বোতাম ছেঁড়া ..
হাসতে হাসতে পিছোতে পিছোতে তুমি ........
ভাবতে ভাবতে আমি ....
"অকস্মাৎ "
স্বমস্বরে " আরে তুমি" !!!!
ভিভাল্ডির সুর 
ভয়ঙ্কর অগ্নুৎপাতের মতো আকাশ কে সাক্ষী রেখে 
আমার বুকে মুখ লুকালে তুমি .
স্বপ্নময় ল্যাম্পপোস্ট 
আগুন রঙের আকাশ 
বোতাম ছেঁড়া হলদে পাঞ্জাবি 
আর প্রজাপতি শাড়ী 
বোকার মতো হাসতে হাসতে গড়া গড়ি যায় .....

****** বোতাম গুলো তুমি ই তো ছিড়ে ছিলে 
চিলেকোঠার এক অশান্ত মধ্যাহ্নে ...


মনে আছে ?

Monday, August 27, 2018

Raj Lakkhi gahilo

রাজলক্ষী গাহিল 
"একে পদ- পঙ্কজ ,পঙ্কে বিভূষিত ,কণ্টক জরোজরো ভেল
তুয়া দরশন- আশে কছু নাহি জানালু চির দুঃখ অব দূরে গেলো
তোহারিমুরালি যব শ্রবণে প্রবেশল ছোরোনু গৃহ সুখ আশ,
পন্থক দুঃখ তুনহু করিনা গননু কহতহি গোবিন্দদাস "

Sunday, August 26, 2018

Vog

ভোগ

এলিয়ট এর একটা কবিতা ও  আজ আমার মনে পড়েনা 
পায়েরকাছে পরে থাকা রাস্তার শেষ খুঁজে পাইনা আমি 
একটা আয়না আছে  যা দেখছে আমায় শেষ বারের মতো 
একটি দুয়ার আছে  যা বন্ধ করেছি 
পৃথিবীর শেষ প্রান্তে যাবার আগে .....
বুককেসেবেশ কিছু বই আছে
যা কখনো আর খোলা হবেনা

জুন মাসে আমি প্রাচীন বটবৃক্ষ হবো 
মৃত্যু আজ ক্লান্তিহীন ভাবে ভোগ করে চলেছে  আমায় .....
সময় এর মতো ,নদীর মতো ,নারীর মতো I 

অমিয়

Friday, August 24, 2018

Tarpor

তারপর

একটি নির্বোধ মেয়ে আমায় বার বার বার প্রশ্ন করে 
সব কথা শেষ হলে 
বলে " তারপর " ?
আমি যত বলি তারপর আর হয়না
সে বলে " সে আবার কি, তারপর তো কিছু একটা থাকতেই হবে
তা নাহলে " তারপর কথাটাই তো মিথ্যে  হয়ে যেত .
শূন্য ...তারপর এক ,  একের পর দুই ,
জীবন তারপর মৃত্যু 
মৃত্যু তারপর অরেক সুন্দর গভীরতা ,
সুন্দর গভীরতার পর আসে নাদ 
উদ্বেল বিস্ময়কর নীরবতার লহরী,
 আমি বলি 
 তারপর?
সাশ্রুনেত্রে সে বলে , তার পর তুমি ,তার পর আমি

তারপর আরেক শূন্যতা  I 

Thursday, August 23, 2018

Hand in Hand by Stefan Zweuig translated by Amiya chatterje

Stefan Zweig
(1881-1942)
hand in hand
Leave your hand in my hands,
There it rests soft and mild and good,
And softly a donation of drink flows
from my embers into your embers,
Until they do not divorce each other's
names.
And then consuming in the two
A single thought burns.
Stefan Zweig poetry
Hatey haat
Amar haatey tomar haat rakho,
Ekhane oi hat shanto,Snigdho, narom sundor,
amar hater jwalonto agun tomar hatey,
tatokkhon
jotokkhon na amder dujoner naam muchhey jai....
Amader dujoner akanto bhabna
purey chhhai hoye jai

Wednesday, August 15, 2018

ফসিল 
একমাত্র চিত্রকর আমি বেঁচে আছি ,
সুপ্রসিদ্ধ দার্শনিক ,পর্বত শিখর  অথবা 
বারাণসী মন্দিরে পুরোহিত ফসিল এ পরিণত প্রস্তরীভূত
.
কথা 
সর্ব ক্ষুদ্র কথা ও নি:শ্যবদ্কষাঘাত হানে ,
শুধু চিত্রকর আনন্দে বিভোর 
অঞ্জলি ভরা শেফালী ফুলের গন্ধ 
স্বরবর্ণ চাম্পাফুল .অভিসারিকা কাঞ্চন 
প্রথম রাত্রির মিলন মদিরা ......
ক্রিমসন লেক , কোবল্ট ব্ল.তুর্কাজ লএ মন ইয়েলো .....
গন্ধ বিলা বে জানালার ওধারে ,
মস্তিস্ক ঘুমন্ত 
সমুদ্র ফিসফিস অন্ধকার 
অজানা কিসের গন্ধ !
কোনো বুকের গন্ধ ?
শিহরিত  আঙুলের ছোয়া ঠোঁটে 
চুপি চুপি 
অন্তহীনতা
ডুবে যাওয়া ছাড়া 
আর কোনো পথ নেই 
আর কোনো লক্খ নেইই 


@ অমিয়

Swadhinota kar ?

স্বাধীনতা কার ?
শিয়ালদএ স্টেশন এ ক্ষুধার্ত ছিন্নমূল পরিবারের ছোট্ট মেয়েটিকে কিনে নিয়ে 
যারা ধর্ষণ করেছিল বার বার তার?
হাজার হাজার টন খাদ্য শস্য গুদাম এ রেখে পড়ে কালো বাজারে যারা বিক্রি 
করেছিল তাদের ?
চালের মধ্যে কাঁকর 
তেলের মধ্যে রেড়ির তেল মিশিয়ে 
মিল্ক পাউডার এ তেন্তুলবিচি  গুঁড়ো মিশিয়ে 
ক্ষুধার্ত শিশুদের খাইয়ে ছিল তাদের ?
এম এ পাস যুবক দের দারওযান এর চাকরি দেয়া যাদের ধর্ম  ছিল তাদের ?
ধনঞ্জয়ের মতো নিরপরাধ যুবক কে ফাঁসি দেয়ার যাদের অধিকার ছিল  তাদের ?
কোটি কোটি টাকা লুট করে 
ব্যাঙ্ক এর কর্মচারীদের ঠকিয়ে  যারা বিদেশে পালিয়েছে তাদের?
মিথ্যা আস্ফালন ,করে দেশের মানুষকে বার বার ঠকিয়েছে তাদের?
ধর্মের নাম করে একটা দেশ কে  বিভক্ত করে দেয় যারা তাদের ?

Tuesday, August 14, 2018

Ashroy

আশ্রয় 
আমার সহৃদয় মন 
বন্য জন্তুর মতো আর্তনাদ করেছিল 
তুমি হেসেছিলে 
ক্লাউনের  মতো অভিনয় করে করে 
একাকী সংগোপনে ক্লান্তি নিথর আমি ,
অবশেষে তোমার ছায়ার কাছে নতজানু হয়ে 
আশ্রয় চেয়েছি .
আমার মস্তিষ্কের নৈশ্যবদ নিয়ে 
স্হসরও ধূলিকণার যন্ত্রনা নিয়ে 
অদৃশ্য এলার্ম ঘড়ির নি:শ্যবদ কণ্ঠস্বর নিয়ে 
অন্য কেউ বেঁচেছিল  আমার ছায়াতে ,
তুমি কোনোদিন 
চেনোনি তাকে 

Sunday, August 12, 2018

1947

১৯৪৭
আমার বয়স ১৩ 
 আমাদের ক্লাব এর ক্যাপ্টেন বললেন 
চল ভলান্টিয়ার হতে হবে

শিয়ালদাহ ইস্টিশন 
হাজার হাজার অভুক্ত ছিন্নমূল মানুষ
যাদের সব ছিল ,সব গেছে একটা অপরিসর তাম্বু ছাড়া .
অশ্রুসিক্ত চোখে তাদের সেবায় মগ্ন হলাম
খাদ্য ,বস্ত্র  দিয়ে তাদের অপমানিত করতে হলো ,
ভিক্ষা ....ভিক্ষা ....ভিক্ষা ...দিতে হলো এদের .
কারন দিল্লির খুব ভালো থাকা নেতারা এটাই চেয়েছিলেন
স্বাধীনতা মানে ওদের কাছে দেশ ভাগ 
দুটি শক্তি শালী প্রদেশ কে সর্বতোভাবে শক্তিহীন করে দেয়া .
এক পাঞ্জাব আর এক বাংলা .
বাংলা অনেক সহ্য করেছে 
দুর্ভিক্ষ ,মহামারী , রক্তক্ষয়ী রায়ট, দেশ বিভাগ .....
তবু বাঙালি বেঁচে আছে 
থাকবে ও

Friday, August 10, 2018

Nimontron

নিমন্ত্রণ

এবার বলেছি আমি " তোমার বাড়ি যাবো"
অশথ্থবলেছে "এস "
হেঁটেছি বহুদূর 
পথে
দেখা হলো কত বন্ধুর সাথে 
শিমুল হাত নেড়ে বলে "ভালো আছো বন্ধু ?"
শিরিষ বলেছে অভিযোগ নিয়ে 
" এতদিন কোথায় ছিলে "? 
চন্দন কদম্ব আর মেহগনি  হাত ধরে বলে 
" আমার বাড়ি এস "
আর কৃষ্ণচূড়া  সেই পুরোনো দিনের মতন 
আমায় দেখে লজ্জায় লাল .
খঞ্জনা নদীর পাড়ে বৃদ্ধ বট ঝুড়ি নামিয়ে ধ্যানস্থ .
আমি তার কোটরে  ঢুকে বলি "আমি এসেছি"
সে বলে " চলে যাবে বলেই তো সব আসা"

অমিয়

Thursday, August 9, 2018

Sahomoron

সহমরণ
যে আগুন একদিন
প্রাণে পরশমনির সুখ দিয়েছিলো 
আজ সে আগুনেই সহমরণ তোমার আমার 

মিলনের অশ্রুপাতে
একদিন নীরব গভীরতা 
সেই অশ্রুই বন্যা হয়ে নিয়ে চলে 
কোনো এক মহাসমুদ্রের পানে,
কাছে ছিলে বলে 
দূরে সরে গেলে I 

@ অমিয়

Tuesday, August 7, 2018

baishey shrabon

বাইশে শ্রাবন
রবি অস্তাচলে গেলেন 
অনুগত মানুষেরা কবি কে সাজিয়ে দিলো রাজার সাজে
ফুলে ফুলে ঢেকে দেয়া হলো সেই দীর্ঘ দেহি কবি কে
.যাত্রা শুরু হলো 
শব যাত্রার সঙ্গী হলেন শত শত শোকার্ত মানুষ.
নীম তলার দিকে
***************************
কিন্তু এরই মধ্যে কিছু অমানুষ 
কবির পোশাক , কবির চুল ,দাড়ি ছিঁড়ে নিতে শুরু করলো
অবশেষে সেই বিশাল দেহি মানুষ কে যখন 
নীমতলার ঘাটে নামানো হলো দাহ করার জন্য 
কবি তখন প্রায় উলঙ্গ ,শুভ্র কেশ ইত্যাদি উধাও 
সেগুলো এখন কিছু ভ্রষ্টাচারী  মানুষের মোমেন্টো.

*সজনী কান্ত দাস এর শনিবারের চিঠি অবলম্বনে .

Saturday, August 4, 2018

Dhooper gandho

ধূপের গন্ধ 

 " মনে করে ফর্দ টা সঙ্গে নিও
তোমার আবার ভুলো মন,
বাজার গিয়ে ফর্দ দেখে বাজার কোরো,আন্দাজ এ নয় 
চশমাটা নিও কিন্তু ....
শোনো, ...পুটু আসছে  অনেক দিনের পর 
কুচো চিংড়ি দিয়ে বাঁধাকপি বড্ডো ভালো বাসে,
দই এনো মিস্টি এনো জিরে এনো ধোনে এনো 
ভালো দেখে গুঁড়ো হলুদ চাই 
লাট সাহেবের ছেলের ভেটকি মাছের ফ্রাই না হলে চলবে না কিছু তেই,
কি দাম বেশি ?
উঃ: কি হার কিপ্টে তুমি ?
আচ্ছা শোনো ,
পুঁইডাঁটা কি বাজার থেকে উঠেই গেল এবার ?
লকলকে সেই ডাঁটাগুলো কাদের থলে ভরে ?
কলাই ডাল , পোস্ত হবে  মনে করে এনো ,
তোমার জন্যে গোটা দুই কাঁচকলা এনো ,
ওহ ভালো কথা ....
ধূপ কাঠির দোকান থেকে  শেষে এক প্যাকেট ভালো দেখে 
ধূপ কাঠি এনো ,,," ভালো বাসা ধূপ'"

*****************************************************
ঠেলা গাড়ি ,ট্রামের ঘন্টা ,বাসের ধোঁয়া , ট্যাক্সিওয়ালা 
মোড়ের মাথায় ...মাথাটা যেন
...মাথাটা যেন ...মাথাটা যেন .....
****************************************
"ডুবি অমৃত পাথারে ,যাই ভুলে চরাচর , মিলায় রবি শশী "
পৃথিবীটা যেন উল্টো দিকে ঘুরতে শুরু করে ,
ছিটকে পরে  মাছের থলে ,কুচো চিংড়ি ট্রামের চাকার নীচে 
পুঁই এর ডগা ঠেলার চাকা জড়িয়ে ধরে 
গুঁড়িয়েযাই চশমা টা ও বাসের চাকার নীচে .....
" নাহি দেশ নাহি কাল  নাহি হেরি সীমা "
ফুটপাথের ওই শিব মন্দিরে নাম না জানা ধূপের গন্ধ 
প্রাণে এসে লাগে ভালো বাসার ধূপ ,স্তব্ধ হওয়ার আগে ,
দোকান টাতে আর হলোনা যাওয়া ,
হাতের মুঠোয় ফর্দ খানা ধরা .....
" প্রেম মুরতি হৃদয়ে জাগে 
আনন্দ নাহি ধরে "

@ অমিয়

Thursday, August 2, 2018

Swadhinota

স্বাধীনতা 
আবার একটা স্বাধীনতা দিবস 
আবার জাতীয় পতাকা উত্তোলন 
নেতা রা আসবেন গালভরা বুলি দেবেন
আবার স্বপ্ন দেখাবেন 
ভয়ঙ্কর প্রস্রাব চেপে ভুল সুরে জাতীয় সঙ্গীত গাইবেন 
তাদের বক্ত্রিতায় দেশ বিভাগের যন্ত্রনা থাকবেনা 
কিশোর বালক দের ফাঁসির মঞ্চে প্রাণত্যাগের কথা থাকবেনা
শঠতা ,মিথ্যাচারের কথা থাকবেনা
জাতির " পিতা ও মাতার " কথা থাকবে যারা
কোটি কোটি অসহায় ভারতীয় কে ভুল পথে
চালিত করে অবশ্যাম্ভী মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছিলো 
তাদের গলায় কিছু ধর্ষিতা ফুলের মালা দোলাবেন  আর সে দৃশ্য দেখে 
তাদের রক্ষিতা দের বুক ফুলে উঠবে , 
আবার দিন শুরু হবে হাজার হাজার মিথ্যা ও ছলনা দিয়ে .
হাজার হাজার মুক বালিকা দের ধর্ষণ হবে 
বিচারের প্রহসন হবে 
কিছু স্বাধীন জীব আপনার আমার কোটি কোটি টাকা লুট করে
বিদেশে পালাবেন ...এ তাদের স্বাধীনতা , দেশের চৌকিদার এর স্বাধীনতা 
তাদের সর্বতো ভাবেই সাহায্য করা
ও আমার দেশের মাটি ,তোমার পায়ে ঠেকাই মাথা .

Wednesday, August 1, 2018

Anyo ghat

অন্যঘাট 
অন্নপূর্ণা উঠেছিল আমার নৌকায় এ ঘাটে
চোখের জলের সাথে বলেছিলো সে 
নিয়ে চলো অন্যঘাটে ,
এ কথা শুনেই নৌকার বুকে নদীর ছলাৎ ছলাৎ ,
 কত ঘাট কত উপবন এলো গেল ,
নৌকা বলে বার বার " এই কি সেই ঘাট" ?
নদী বলে না না ,অন্য ঘাটে চলো না .
 তার পর বৈশাখী ঝড় এলো 
একবুক রাত্রির বুক চিরে ,নদীতে তান্ডব ,
অট্টহাস্যে অন্নপূর্ণা 
অন্য ঘাটে নামে,
এক ভাঙা নৌকা ফেলে  I